সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ০৫:৩৪ অপরাহ্ন
নোটিশ ::
বাংলাদেশ সারাবেলা ডটকমে আপনাদের স্বাগতম। সারাদেশের জেলা,উপজেলা ও বিশ্ববিদ্যালয়ে  প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে, আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন - ০১৭৯৭-২৮১৪২৮ নাম্বারে
সংবাদ শিরোনাম ::
পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ সেশনের শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠিত ভাঙ্গায় শিক্ষক আজগর আলীর শোক সভা অনুষ্ঠিত ডিআইইউতে গবেষণা বিষয়ক সেমিনার বড়াইগ্রামে ট্রাক মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে চালকসহ দুইজন নিহত কাঁচাবাজারের সরকারি জমি দখল উপজেলা প্রশাসনের, বিপাকে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা শার্শার বাগআঁচড়ায় সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ। আহত-১ দুমকীতে গভীর রাতে হাত পা বেঁধে ফিল্মি স্টাইলে ডাকাতি! জিপিএ পদ্ধতি বাতিলের দাবি শিক্ষার্থীদের থট অফ রমাদানের ব্যতিক্রম আয়োজন ” বিবেক দংশন ” – নাজমুল হুদা শিথিল। শার্শার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গনি’র মুত্যু, দাফন সম্পন্ন। কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা দিলো কাকিনা স্টুডেন্টস ফোরাম চকরিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় স্কুল শিক্ষিকার মৃত্যু নাটোরে চাঞ্চল্যকর কৃষক হত্যার খুনীদের ফাঁসির দাবি বড়াইগ্রাম-বনপাড়া পৃথক উপজেলা গঠণের লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা মেহেদীর জন্য সাহায্যের হাত বাড়ান দুমকীতে ছাত্রলীগের উদ্যোগে গরিব অসহায় মানুষের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ। ভেড়ামারায় ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ হস্তান্তর পাবিপ্রবিতে বঙ্গবন্ধু হল ছাত্রলীগের সেক্রেটারি মেহেদী হাসান রেইনের ইফতার বিতরণ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিয়ে চিকিৎসা বোর্ড গঠন করেও বাঁচানো গেলো না সিংহী নদীকে নাটোরের মেয়ে সুমাইয়া সহকারী জজ নিয়োগ পরীক্ষায় দেশ সেরা নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিল্ম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগে বঙ্গবন্ধু কর্নার উদ্বোধন নোবিপ্রবি উপাচার্যকে নিয়ে বিভ্রান্তিকর সংবাদ; বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতিবাদ চকরিয়ায় ১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ যুবক আটক পাবিপ্রবিতে রসায়ন পরিবারের ইফতার ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন।

চকরিয়ায় সড়কের মাঝখানে বৈদ্যুতিক খুঁটি রেখেই চলছে সড়ক উন্নয়নের কাজ

মোঃ কামাল উদ্দিন, কক্সবাজার প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৫ এপ্রিল, ২০২২
  • ৩৬ ০০০ বার

প্রতিদিন সারাদেশে সড়কে দুর্ঘটনা ঘটেই চলেছে। এতে কেউ মারা যাচ্ছেন আবার কেউ গুরুতর আহত হয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করছেন। এসব দুর্ঘটনা এড়াতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নিচ্ছেন নানা পদক্ষেপ। এরই মধ্যে চকরিয়া পৌরসভার ভাঙ্গারমুখ থেকে অলিশাহ বাজার সড়কে দেখা গেছে অন্য চিত্র। গত ১ মাস ধরে ভাঙ্গারমুখ থেকে অলিশাহ বাজার পর্যন্ত সড়কের মাঝখানে বিদ্যুতের খুঁটি রেখেই সড়ক উন্নয়ন কাজ করছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন চকরিয়া পৌরসভার অধীনে কাজ পাওয়া ঠিকাদারী প্রতিষ্টান সেলিম এন্ড ব্রাদার্স। সাধারণ মানুষের সুবিধার জন্য ৪ কিলোমিটার এই সড়কটি প্রশস্ত করা হলেও সড়কের মাঝখানে থাকা হাই ভোল্টেজ বিদ্যুতের খুঁটিগুলো প্রতিনিয়ত মনে করিয়ে দেয় সড়ক দুর্ঘটনার কথা। মঙ্গলবার (৫ এপ্রিল) সকালে সরেজমিনে সেই সড়কটিতে দেখা গেছে, পৌরশহরের ৯নং ওয়ার্ড ভাঙ্গারমুখ থেকে অলিশাহ বাজার পর্যন্ত রাস্তা প্রশস্ত করার ফলে ১১ হাজার ভোল্টেজ সম্পন্ন বিদ্যুৎ সংযোগের প্রায় ১০-১৫টি বৈদ্যুতিক খুঁটি রাস্তার মাঝখানে পড়েছে। সড়কটি ২০-২৫টি গ্রামের সাধারণ মানুষের চলাচলের প্রধান সড়ক হওয়ায় প্রতিনিয়ত ছোট বড় যানবাহনের চাপ রয়েছে। সড়কের মাঝখানে খুঁটি থাকায় দুর্ঘটনাও ঘটছে বলে জানা গেছে স্থানীয়দের কাছে। আরও দেখা গেছে, সড়কটির নির্মাণ কাজের বক্স-কাটিং শেষে ইটের খোয়া ফেলে সেগুলো রোলার দিয়ে সমান করার (ডব্লিউভিএম) কাজ শেষ করা হয়েছে। কিন্তু সড়কে ১১ হাজার ভোল্টের তার বহনকারী বিদ্যুতের খুঁটি রয়েই গেছে। এ বিষয়ে জানতে, বাংলাদেশ পাওয়া ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের কক্সবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল কাদের গণির সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি এবিষয়ে অবগত নেই বলে জানান। তিনি চকরিয়ার আবাসিক প্রকৌশলী গিতি বসু চাকমার সাথে যোগাযোগ করতে বলেন। পরে চকরিয়া আবাসিক প্রকৌশলী গিতি বসু চাকমার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, রাস্তার উপর থেকে বৈদ্যুতিক খুঁটি সরানোর এখনো কোন ঠিকাদারী প্রতিষ্টান বা পৌর কর্তৃপক্ষ আমাদের সাথে যোগাযোগ করেনি এবং লিখিত কোন চিঠিও দেয়নি। লিখিত চিঠি দিলে পৌর কর্তৃপক্ষ এবং আমরা একসাথে গিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটি স্থানান্তর করতাম। এদিকে ব্যটারিচালিত অটোরিকশাচালক আবুল হাসেম বলেন, আগে রাস্তা ছোট ছিল। তখন বিদ্যুতের খুঁটি রাস্তার পাশেই ছিল চলাচলে তেমন কোনো অসুবিধা হয়নি কিন্তু এখন রাস্তা বড় করায় বিদ্যুতের খুঁটি একেবারে রাস্তার মাঝখানে চলে এসেছে। বিদ্যুতের খুঁটিগুলো তাড়াতাড়ি সরানো প্রয়োজন। না হলে যেকোনো সময় বড় দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। চকরিয়া পৌরসভা ৯নং ওয়ার্ড এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল হাকিম বলেন, সড়কের কাজ শুরু হওয়ায় আমরা খুশি। তবে বিদ্যুতের পিলারগুলো এখনই সরানো উচিত। সব কাজের আগে সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা প্রয়োজন। এই সড়কে যা হচ্ছে তা হলো পরিকল্পনাবিহীন কাজ। কাজ শেষে একদিকে পৌর কর্তমপক্ষ এবং ঠিকাদারী প্রতিষ্টান দায় এড়িয়ে যাবে, অন্যদিকে নানা অজুহাত তৈরি করবে বিদ্যুৎ বিভাগ। ফলে খুঁটি রয়েই যাবে। এতে দুর্ঘটনার মাধ্যমে প্রাণহানির আশঙ্কা যেমন থাকবে তেমনি সড়ক প্রশস্তকরণের কোনো সুফল আসবে না। জানতে চাইলে চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী বলেন, এই বিদ্যুতের খুটিগুলো সরানোর বিষয়ে আমি চকরিয়া ওয়াপদা বিদ্যুত অফিসের সাথে যোগাযোগ করেছি। খুব শীঘ্রই রাস্তার মাঝখান থেকে বৈদ্যুতিক খুঁটিগুলো সরিয়ে নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..