বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ০২:৩৩ পূর্বাহ্ন
নোটিশ ::
বাংলাদেশ সারাবেলা ডটকমে আপনাদের স্বাগতম। সারাদেশের জেলা,উপজেলা ও বিশ্ববিদ্যালয়ে  প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে, আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন - ০১৭৯৭-২৮১৪২৮ নাম্বারে
সংবাদ শিরোনাম ::
দৌলতপুরে প্রধান শিক্ষক আলী আকবর কর্তৃক ২ ছাত্রী কে বেদম প্রহার কুষ্টিয়া ভেড়ামারার হিসনা নদী দখল মুক্ত ও পুনঃখননের দাবী শার্শা সীমান্তে দেড় কোটি টাকার সোনা উদ্ধার, পাচারকারী আটক বাউফলে অবৈধ বালু উত্তোলনের অভিযোগে ইউপি সদস্যকে আর্থিক জরিমানা হ্যাকিংয়ের শিকার নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের ফেসবুক আইডি চকরিয়া কোনাখালীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, নদীর নাব্যতাসহ হুমকির মুখে পরিবেশ শোক দিবস উপলক্ষে দিশা কুমারখালি শাখার পক্ষে দোয়া মাহফিল,বৃক্ষরোপণ বঙ্গবন্ধুর খুনীদের দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের মুখোমুখি করা হবে- অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস এমপি বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধে অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার খসরু পারভজের পুষ্পস্তবক অর্পণ যথাযোগ্য মর্যাদায় বশেমুরবিপ্রবিতে জাতীয় শোক দিবস পালিত বঙ্গবন্ধু মাটি ও মানুষের পরম আত্মীয়: পাবিপ্রবি ছাত্রলীগ ও বঙ্গবন্ধু হল শাখা ছাত্রলীগ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানাল ডিআইইউ জাতীয় শোক দিবসে পাবিপ্রবি ছাত্রলীগ নেতা ইমনের পথশিশুদের নিয়ে ব্যাতিক্রম কার্যক্রম জাতীয় শোক দিবসে পাবিপ্রবি ছাত্রলীগ নেতা রাসেলের বৃক্ষরোপন ও খাদ্য বিতরণ ‘আইসিটি পার্ক’ নিয়ে শতভাগ শিক্ষকের ‘না’; বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির বিবৃতি শোকাবহ আগস্ট উপলক্ষে নোবিপ্রবিতে দেয়ালিকা উন্মোচন  বি ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার শিক্ষার্থীদের সেবায় পাবিপ্রবি ছাত্রলীগ বশেমুরবিপ্রবিতে ‘বি’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত কুতুবদিয়া-মগনামা ঘাট পারাপারে প্রশাসনের সিদ্ধান্ত মানছে না ইজারাদার, ভোগান্তি চরমে ভেড়ামারা দফাদার ফিলিং স্টেশনে আগুন, নিহত ২ চকরিয়ায় অবৈধ হুন্ডি ব্যবসা জমজমাট কুষ্টিয়ার আল্লারদর্গায় পেট্রোল পাম্পে বিস্ফোরণে দুজন নিহত গোপালগঞ্জে Nature is the best teacher শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত পাবিপ্রবির ভবিষ্যত পরিকল্পনা বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাস। নোবিপ্রবিতে শোকাবহ আগস্ট উপলক্ষে The STEMEd Club এর আয়োজন

সহস্রাধিক দিন পর বশেমুরবিপ্রবি দিবস উদযাপিত

তানবির আলম খান
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৮ জুলাই, ২০২০
  • ৩৮২ ০০০ বার

সহস্রাধিক দিন পর আজ আনুষ্ঠানিকভাবে বশেমুরবিপ্রবি দিবস উদযাপিত হলো। 

আজ (৮ জুলাই) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বশেমুরবিপ্রবি) দিবস। ২০ তম উদযাপনে ১৯ বছর পুর্তি হলো আজ।

২০০১ সালের এই দিনে মহান জাতীয় সংসদে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইন পাশ হয়। জাতির পিতা যে মাটিতে শুয়ে আছেন সেই মাটিতে ১৩ই জুলাই তাঁরই নামের বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন তাঁর কন্যা তৎকালীন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জ্ঞান সৃজন আর উন্নয়নের আলো ছড়াবে যে বিদ্যাপীঠ, সেটি যাত্রার শুরুতেই হোঁচট খেয়ে পিছিয়ে যায় এক দশক। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ডায়েরিতে দেওয়া ভূমিকা অনুযায়ী, “২০০১ সালের ২১ জুলাই তত্ত্বাবধায়ক সরকার কর্তৃক প্রকল্প স্থগিত ঘোষণা করা হয় এবং ২০০২ সালের ১৫ এপ্রিল প্রকল্পটি সম্পূর্ণ বন্ধ ঘোষণা করে তৎকালীন চার দলীয় জোট সরকার।”

কালের পরিবর্তনে আবারও মাথা তুলে দাঁড়ায় বশেমুরবিপ্রবি। ২০০৯ সালের নভেম্বরে স্থগিত প্রকল্পটি পুনরায় চালু হয় এবং পরবর্তী বছরের ২০ জানুয়ারি শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক এসআরও জারি হয়। ২০১১ সালের ২৬ ডিসেম্বর থেকে বশেমুরবিপ্রবির শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়।

কয়েক বছর বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন হলেও হঠাৎ অজানা কারণে বন্ধ হয়ে যায় বর্ষপূর্তি পালন। কিন্ত কেন? জানতে চাইলে দীর্ঘদিন ধরে দায়িত্বে থাকা, রেজিস্ট্রার ড. নুর উদ্দীন আহমেদ জানান, “কেনো সেটা জানা নাই। শিক্ষক সমিতি, কর্মচারী সমিতি , কর্মকর্তা সমিতি এমনকি কোন সাধরণ শিক্ষকও কখনো এই দিবস উদযাপনের দাবি করছে বলে জানা নেই।”

গত ১৯ সালের শেষের দিকে অনিয়ম-দুর্নীতি ও অতিমাত্রায় কর্তৃত্ববাদী আচরণের অভিযোগে আন্দোলনের মুখে পদত্যাগে বাধ্য হয় সাবেক উপাচার্য ড. খোন্দকার নাসিরুদ্দিন।

আজ সীমিত পরিসরে উদযাপিত হয়েছে এবারের বশেমুরবিপ্রবি দিবস। শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. হাসিবুর রহমান জানিয়েছেন, “শুধু কেক কাটা ও বেলুন ওড়ানো হয়েছে। প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তারা ও শিক্ষক সমিতি, কর্মকর্তা সমিতি ও কর্মচারী সমিতির কয়েকজন করে সদস্য উপস্থিত থেকেছেন”

দিবস উপলক্ষে ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ শাহজাহান জানান, “করোনাকালে চাইলেও বড় করে দিবসটি উদযাপন করা সম্ভব হচ্ছেনা, এই দিনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সবার জন্য সুস্বাস্থ্য কামনা করছি”

৫৫ একর আয়তনের নিজস্ব ক্যাম্পাসে ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষে ৫ বিভাগের মোট ১৬০ শিক্ষার্থী নিয়ে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করে বশেমুরবিপ্রবি। বর্তমানে ১২ হাজার শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত, যেখানে ৩৪ টি বিভাগ, ৭ টি অনুষদ ও ৩ টি ইন্সটিটিউট রয়েছে, ছাত্রীদের দুটি ও ছাত্রদের জন্য তিনটি হল রয়েছে।

 

 

লেখকঃ তানবির আলম খান,শিক্ষার্থী,বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়,গোপালগঞ্জ।   

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..